ABOUT

LANKABANGLA FINANCE LIMITED

বোর্ড অফ ডিরেক্টরস

জনাব মোহাম্মদ এ মঈন

চেয়ারম্যান

জনাব মঈন, বাংলাদেশের একজন অগ্রণী উদ্যোক্তা। তিনি বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। জনাব মঈন বেশ কয়েকটি ব্যবসায়ে জড়িত আছেন, যার মধ্যে এ্যাপোলো হসপিটালস ঢাকা, ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ঢাকা, ডিপিএস-এসটিএস স্কুল এবং ডব্লিউএসি লজিস্টিক্স লিমিটেড উল্লেখযোগ্য। তিনি লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান, যা দেশের একটি নেতৃস্থানীয় ব্রোকারেজ হাউজ এবং লংকাবাংলা ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড, দেশের একটি অগ্রণী মার্চেন্ট ব্যাংক।

জনাব মাহবুবুল আনাম

ডিরেক্টর

মিঃ আনাম, বুয়েট থেকে পাসকৃত একজন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার। তিনি মালবাহী ফরওয়ার্ডিং, ট্রাভেলস সম্পর্কিত সার্ভিসেস, ইন্টারন্যাশনাল কুরিয়ার প্রভৃতি সহ বিভিন্ন ব্যবসার ২৯ বছরের দীর্ঘ অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। তিনি পরিচালনা ক্ষেত্রে দেশেরবেশ কিছু সম্মানজনক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করছেন। জনাব আনাম এক্সপো মাল্টি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং বেশ কয়েকটি ব্যবসা ও শিল্প পরিচালক। জনাব আনাম স্পোর্টস, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক কাজের ক্ষেত্রে প্রচুর খ্যাতি অর্জনকরেছেন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ মালবাহী ফরওয়ার্ডস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি (বাফফা) এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং টি ২0 বিশ্বকাপের স্থানীয় সংগঠক কমিটির সদস্য।

মিঃ আই.ডব্লিউ. সেনানায়েকে

ডিরেক্টর

মিঃ সেনানায়েকে , মার্চের ২8 তারিখ থেকে স্যাম্প্যাট ব্যাঙ্ক পিএলসি’র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালকদের মধ্যে একজন। ১৯৮৭ সালের এপ্রিল মাসে তিনি ব্যাংকের ডেপুটি চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন। তিনি ব্যাংকের চেয়ারম্যানও ছিলেন। সেনানায়েকে শ্রীলঙ্কায় সিঙ্গাপুরবাণিজ্য উন্নয়ন বোর্ডের প্রাক্তন অনারারি বাণিজ্য প্রতিনিধি, আমেরিকান প্রেসিডেন্ট লাইনস লঙ্কা (প্রাঃ) লিমিটেডের চেয়ারম্যান এবং আই.ডব্লিউ.এস. হোল্ডিংস এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, সংগঠন হিসেবে যেটির ব্যবসায়িক আগ্রহ টেলিযোগাযোগ,ব্রডকাস্টিং, ইনফরমেশন টেকনোলজি, এভিয়েশন, শিপিং, অটোমোবাইল, গুদামজাতকরণ এবং লজিস্টিকস, সাপোর্ট সার্ভিসেস, কনসালটেন্সি এবং প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট সার্ভিসেস ফর টেলিকমিউনিকেশন, প্যাকিং এবং ফুড প্রসেসিং ইত্যাদি সকল ক্ষেত্রে বিস্তৃত।

মিঃ এম. ওয়াই. অরবিন্দ পেরেরা

ডিরেক্টর

জনাব পেরেরা, স্যামপ্যাট ব্যাংক পিএলসি এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক । তিনি চিফ অপারেটিং অফিসার, ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার এবং কর্পোরেট ব্যাংকার হিসেবে কাজ করেছেন এবং স্যাম্প্যাট ব্যাংকের ২৭ বছরের দীর্ঘ কর্মজীবনে অন্যান্য ভূমিকা পালনকরেছেন। ব্যাংকের যোগদানের পূর্বে তিনি ডিএফসিসির একজন সিনিয়র প্রজেক্ট অফিসার এবং বিভাগীয় ম্যানেজার ও সার্ভিস ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে সিলন টোব্যাকো কোম্পানীতে এবং ন্যাশনাল মিল্ক বোর্ডের ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে কাজ করেন। তিনি ব্যাংকেরইনস্টিটিউট, শ্রীলংকা, চার্টার্ড ইনস্টিটিউট অফ ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্টেন্টস, ইউকে, চার্টার্ড ইঞ্জিনিয়ার এবং ইনস্টিটিউট অফ ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের সদস্য, শ্রীলংকা। তিনি মোরাতুয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক ডিগ্রিধারী এবং শ্রীজয়াবর্ধনেপুরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ সম্পন্ন করেন।

জনাব এম ফখরুল আলম

ডিরেক্টর

ওয়ান ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব আলম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ) থেকে এমবিএ সম্পন্ন করেন। তার বিভিন্ন ব্যাঙ্ক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলিতে কর্পোরেট, ট্রেজারি এবং বিনিয়োগব্যাংকিংএর বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজ করা সহ ৩১ বছরের ব্যাংকিংয়ের বিস্তৃত অভিজ্ঞতা রয়েছে। তিনি ১৯৮১ সালে একজন অফিসার হিসেবে অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের তার ক্যারিয়ার শুরু করেন এবং পরবর্তীতে দেশে ও বিদেশে আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেডএবং ব্যাংক অফ ক্রেডিট অ্যান্ড কমার্স ইন্টারন্যাশনাল (ওভারসিজ) লিমিটেডে কাজ করেন। ওয়ান ব্যাংকে যোগদানের পূর্বে তিনি ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের ট্রেজারি অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকিং বিভাগে ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং কর্পোরেট ব্যাংকিং প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি অক্টোবর ০৮, ২০১৩ থেকে ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসাবে ওয়ান ব্যাংকে দায়িত্ব পালন করছেন।

জনাব তাহসিনুল হক

ডিরেক্টর

জনাব হক, অর্থনীতি ও রাজনীতিবিজ্ঞানে উইলিয়ামস কলেজ, ম্যাসাচুসেটস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন। তিনি ১৯৯০ সালে নিউ ইয়র্কের মেরিল লিঞ্চের সাথে তার কর্মজীবন শুরু করেন এবং ২০০৩ সাল পর্যন্ত কোম্পানির বিভিন্ন পদে চাকরি করেন। এরপর তিনি লন্ডনে ডয়চে ব্যাংকে বিনিয়োগ ব্যাংকিং বিভাগের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন। তিনি লন্ডনে ডয়েচে ব্যাংকের বিনিয়োগ ব্যাংকিং, ক্যাপিটাল মার্কেটস এবং বিভিন্ন ব্যবস্থাপনা ভূমিকাতে অনেক বছর দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৬ সালে, তিনি ডয়চে ব্যাংকের সাথে একটি সিনিয়র পরিচালকের ভূমিকাতে নিউইয়র্কে স্থানান্তরিত হন। মিঃ হক আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিজেকে সুদক্ষ বিনিয়োগ ব্যাংকার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

মিসেস অনিষা মাহিয়াল কুণ্ডালমাল

ডিরেক্টর

মিসেস কুন্ডামাল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে বি.এ. (অনার্স) সম্পন্ন করেছেন এবং দেশের একজন নেতৃস্থানীয় নারী উদ্যোক্তা হিসেবে বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত। তিনি রয়েল পার্ক লিমিটেডের পরিচালক। তিনি বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত। তিনি একজন প্রখ্যাত ব্যবসায়িক ব্যক্তিত্ব মিঃ বি. কুন্ডালমালের স্ত্রী।

জনাব আল মামুন মোঃ সানাউল হক

ইন্ডিপেনডেন্ট ডিরেক্টর

জনাব হক, হাইবুরি কলেজ অফ টেকনোলজি, পোর্টসমাউথ, ইউকে থেকে ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্টিং এ তার স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফলিত রসায়ন বিজ্ঞানে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ে কন্ট্রোলার জেনারেল অব অ্যাকাউন্টস, হিসেবে কাজ করেন। বাংলাদেশের কনট্রোলার ও অডিটর জেনারেলের অডিট বিভাগে কাজ করার বিস্তর অভিজ্ঞতা তাঁর আছে। জনাব হক বিশ্বব্যাংকের মত কিছু আন্তর্জাতিক সংস্থার সাথে পরামর্শক হিসেবেও কাজ করছেন। তিনি দেশে এবং বিদেশে অনেক প্রশিক্ষণ, কর্মশালা এবং সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন।

মিসেস যাইতুন সাইফ

ইন্ডিপেনডেন্ট ডিরেক্টর

মিসেস যাইতুন সাইফ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন ইন্সটিটিউট (আইবিএ) থেকে এমবিএ সম্পন্ন করেন। তিনি অভিজ্ঞ বিশেষ করে কর্পোরেট ফাইন্যান্স, ট্রেজারি এবং শাখা ব্যাংকিংয়ে তার ৩০ বছরের অভিজ্ঞতা রয়েছে। তিনি আইএফআইসি ব্যাংকের বিভিন্ন ব্যবস্থাপনা পদে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৩ সালে তিনি অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের একজন সিনিয়র অফিসার হিসেবে তার কর্মজীবন শুরু করেন।
তিনি দেশে এবং বিদেশে বেশ কিছু প্রশিক্ষণ, কর্মশালা এবং সেমিনারে অংশ নেন। তিনি আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেডে ১৯৮৪ সালে প্রবেশন অফিসার হিসেবে যোগদান করেন এবং ২০১৩ সালে অবসর নেওয়ার সময় তিনি ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

খাজা শাহরিয়ার

ম্যানেজিং ডিরেক্টর

লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খাজা শাহরিয়ার, ১১ ই জুন ২0১২ তারিখে লংকাবাংলাতে ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর হিসেবে যোগদান করেন। তার দীর্ঘ ও সম্মানিত কর্মজীবনে একজন সুদক্ষ ব্যাংকার হওয়ার সুবাদে তিনি বিভিন্ন ব্যাংকিং ও নন-ব্যাঙ্কিং ফাইন্যান্সিয়াল ইনস্টিটিউশনে বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেন। পূর্বে তিনি ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেডের বিভিন্ন পদে বিভিন্ন মেয়াদে কর্পোরেট ব্যাংকিং হেড, ক্যাশ ম্যানেজমেন্টের প্রধান এবং প্রবাসী ব্যাংকিং সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজ করেন। উপরন্তু, তিনি জিএসপি ফিন্যান্স কোম্পানি লিমিটেড এবং বাংলাদেশ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি লিমিটেডের বিভিন্ন পদে চাকরি করেন। মিঃ শাহরিয়ার উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড, এবি ব্যাংক লিমিটেড এবং গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের জন্যও কাজ করেছেন।

জনাব শাহরিয়ার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে বি.এ (হনার্স) এবং এমএ সম্পন্ন করেন। তিনি অস্ট্রেলিয়ায় মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়, মেলবোর্ন থেকে ব্যাংকিং ও ফাইন্যান্সে ব্যাচেলর অব বিজনেস সম্পন্ন করেন এবং অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নের ভিক্টোরিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফাইন্যান্সে মাস্টার অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সম্পন্ন করেন। তিনি দেশে এবং বিদেশে অনেক প্রশিক্ষণ, কর্মশালা এবং সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন।

জনাব শাহরিয়ার বিয়ে করেছেন এবং তার একজন কন্যা একজন পুত্রসন্তান আছে। তিনি পড়তে, ভ্রমণ করতে, সঙ্গীত শুনতে এবং ফুটবল ও ক্রিকেট উপভোগ করতে ভালবাসেন।

বোর্ড অফ ডিরেক্টরস

জনাব মোহাম্মদ এ মঈন

চেয়ারম্যান

জনাব মাহবুবুল আনাম

ডিরেক্টর

মিঃ আই.ডব্লিউ. সেনানায়েকে

ডিরেক্টর

জনাব মঈন, বাংলাদেশের একজন অগ্রণী উদ্যোক্তা। তিনি বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। জনাব মঈন বেশ কয়েকটি ব্যবসায়ে জড়িত আছেন, যার মধ্যে এ্যাপোলো হসপিটালস ঢাকা, ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ঢাকা, ডিপিএস-এসটিএস স্কুল এবং ডব্লিউএসি লজিস্টিক্স লিমিটেড উল্লেখযোগ্য। তিনি লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান, যা দেশের একটি নেতৃস্থানীয় ব্রোকারেজ হাউজ এবং লংকাবাংলা ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড, দেশের একটি অগ্রণী মার্চেন্ট ব্যাংক।

মিঃ আনাম, বুয়েট থেকে পাসকৃত একজন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার। তিনি মালবাহী ফরওয়ার্ডিং, ট্রাভেলস সম্পর্কিত সার্ভিসেস, ইন্টারন্যাশনাল কুরিয়ার প্রভৃতি সহ বিভিন্ন ব্যবসার ২৯ বছরের দীর্ঘ অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। তিনি পরিচালনা ক্ষেত্রে দেশেরবেশ কিছু সম্মানজনক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করছেন। জনাব আনাম এক্সপো মাল্টি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং বেশ কয়েকটি ব্যবসা ও শিল্প পরিচালক। জনাব আনাম স্পোর্টস, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক কাজের ক্ষেত্রে প্রচুর খ্যাতি অর্জনকরেছেন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ মালবাহী ফরওয়ার্ডস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি (বাফফা) এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং টি ২0 বিশ্বকাপের স্থানীয় সংগঠক কমিটির সদস্য।

মিঃ সেনানায়েকে , মার্চের ২8 তারিখ থেকে স্যাম্প্যাট ব্যাঙ্ক পিএলসি’র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালকদের মধ্যে একজন। ১৯৮৭ সালের এপ্রিল মাসে তিনি ব্যাংকের ডেপুটি চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন। তিনি ব্যাংকের চেয়ারম্যানও ছিলেন। সেনানায়েকে শ্রীলঙ্কায় সিঙ্গাপুরবাণিজ্য উন্নয়ন বোর্ডের প্রাক্তন অনারারি বাণিজ্য প্রতিনিধি, আমেরিকান প্রেসিডেন্ট লাইনস লঙ্কা (প্রাঃ) লিমিটেডের চেয়ারম্যান এবং আই.ডব্লিউ.এস. হোল্ডিংস এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, সংগঠন হিসেবে যেটির ব্যবসায়িক আগ্রহ টেলিযোগাযোগ,ব্রডকাস্টিং, ইনফরমেশন টেকনোলজি, এভিয়েশন, শিপিং, অটোমোবাইল, গুদামজাতকরণ এবং লজিস্টিকস, সাপোর্ট সার্ভিসেস, কনসালটেন্সি এবং প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট সার্ভিসেস ফর টেলিকমিউনিকেশন, প্যাকিং এবং ফুড প্রসেসিং ইত্যাদি সকল ক্ষেত্রে বিস্তৃত।

মিঃ এম. ওয়াই. অরবিন্দ পেরেরা

ডিরেক্টর

জনাব এম ফখরুল আলম

ডিরেক্টর

জনাব তাহসিনুল হক

ডিরেক্টর

জনাব পেরেরা, স্যামপ্যাট ব্যাংক পিএলসি এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক । তিনি চিফ অপারেটিং অফিসার, ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার এবং কর্পোরেট ব্যাংকার হিসেবে কাজ করেছেন এবং স্যাম্প্যাট ব্যাংকের ২৭ বছরের দীর্ঘ কর্মজীবনে অন্যান্য ভূমিকা পালনকরেছেন। ব্যাংকের যোগদানের পূর্বে তিনি ডিএফসিসির একজন সিনিয়র প্রজেক্ট অফিসার এবং বিভাগীয় ম্যানেজার ও সার্ভিস ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে সিলন টোব্যাকো কোম্পানীতে এবং ন্যাশনাল মিল্ক বোর্ডের ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে কাজ করেন। তিনি ব্যাংকেরইনস্টিটিউট, শ্রীলংকা, চার্টার্ড ইনস্টিটিউট অফ ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্টেন্টস, ইউকে, চার্টার্ড ইঞ্জিনিয়ার এবং ইনস্টিটিউট অফ ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের সদস্য, শ্রীলংকা। তিনি মোরাতুয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক ডিগ্রিধারী এবং শ্রীজয়াবর্ধনেপুরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ সম্পন্ন করেন।

ওয়ান ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব আলম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ) থেকে এমবিএ সম্পন্ন করেন। তার বিভিন্ন ব্যাঙ্ক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলিতে কর্পোরেট, ট্রেজারি এবং বিনিয়োগব্যাংকিংএর বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজ করা সহ ৩১ বছরের ব্যাংকিংয়ের বিস্তৃত অভিজ্ঞতা রয়েছে। তিনি ১৯৮১ সালে একজন অফিসার হিসেবে অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের তার ক্যারিয়ার শুরু করেন এবং পরবর্তীতে দেশে ও বিদেশে আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেডএবং ব্যাংক অফ ক্রেডিট অ্যান্ড কমার্স ইন্টারন্যাশনাল (ওভারসিজ) লিমিটেডে কাজ করেন। ওয়ান ব্যাংকে যোগদানের পূর্বে তিনি ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের ট্রেজারি অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকিং বিভাগে ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং কর্পোরেট ব্যাংকিং প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি অক্টোবর ০৮, ২০১৩ থেকে ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসাবে ওয়ান ব্যাংকে দায়িত্ব পালন করছেন।

জনাব হক, অর্থনীতি ও রাজনীতিবিজ্ঞানে উইলিয়ামস কলেজ, ম্যাসাচুসেটস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন। তিনি ১৯৯০ সালে নিউ ইয়র্কের মেরিল লিঞ্চের সাথে তার কর্মজীবন শুরু করেন এবং ২০০৩ সাল পর্যন্ত কোম্পানির বিভিন্ন পদে চাকরি করেন। এরপর তিনি লন্ডনে ডয়চে ব্যাংকে বিনিয়োগ ব্যাংকিং বিভাগের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন। তিনি লন্ডনে ডয়েচে ব্যাংকের বিনিয়োগ ব্যাংকিং, ক্যাপিটাল মার্কেটস এবং বিভিন্ন ব্যবস্থাপনা ভূমিকাতে অনেক বছর দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৬ সালে, তিনি ডয়চে ব্যাংকের সাথে একটি সিনিয়র পরিচালকের ভূমিকাতে নিউইয়র্কে স্থানান্তরিত হন। মিঃ হক আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিজেকে সুদক্ষ বিনিয়োগ ব্যাংকার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

মিসেস অনিষা মাহিয়াল কুণ্ডালমাল

ডিরেক্টর

জনাব আল মামুন মোঃ সানাউল হক

ইন্ডিপেনডেন্ট ডিরেক্টর

মিসেস যাইতুন সাইফ

ইন্ডিপেনডেন্ট ডিরেক্টর

মিসেস কুন্ডামাল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে বি.এ. (অনার্স) সম্পন্ন করেছেন এবং দেশের একজন নেতৃস্থানীয় নারী উদ্যোক্তা হিসেবে বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত। তিনি রয়েল পার্ক লিমিটেডের পরিচালক। তিনি বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত। তিনি একজন প্রখ্যাত ব্যবসায়িক ব্যক্তিত্ব মিঃ বি. কুন্ডালমালের স্ত্রী।

জনাব হক, হাইবুরি কলেজ অফ টেকনোলজি, পোর্টসমাউথ, ইউকে থেকে ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্টিং এ তার স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফলিত রসায়ন বিজ্ঞানে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ে কন্ট্রোলার জেনারেল অব অ্যাকাউন্টস, হিসেবে কাজ করেন। বাংলাদেশের কনট্রোলার ও অডিটর জেনারেলের অডিট বিভাগে কাজ করার বিস্তর অভিজ্ঞতা তাঁর আছে। জনাব হক বিশ্বব্যাংকের মত কিছু আন্তর্জাতিক সংস্থার সাথে পরামর্শক হিসেবেও কাজ করছেন। তিনি দেশে এবং বিদেশে অনেক প্রশিক্ষণ, কর্মশালা এবং সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন।

মিসেস যাইতুন সাইফ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন ইন্সটিটিউট (আইবিএ) থেকে এমবিএ সম্পন্ন করেন। তিনি অভিজ্ঞ বিশেষ করে কর্পোরেট ফাইন্যান্স, ট্রেজারি এবং শাখা ব্যাংকিংয়ে তার ৩০ বছরের অভিজ্ঞতা রয়েছে। তিনি আইএফআইসি ব্যাংকের বিভিন্ন ব্যবস্থাপনা পদে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৩ সালে তিনি অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের একজন সিনিয়র অফিসার হিসেবে তার কর্মজীবন শুরু করেন।
তিনি দেশে এবং বিদেশে বেশ কিছু প্রশিক্ষণ, কর্মশালা এবং সেমিনারে অংশ নেন। তিনি আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেডে ১৯৮৪ সালে প্রবেশন অফিসার হিসেবে যোগদান করেন এবং ২০১৩ সালে অবসর নেওয়ার সময় তিনি ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

খাজা শাহরিয়ার

ম্যানেজিং ডিরেক্টর

লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খাজা শাহরিয়ার, ১১ ই জুন ২0১২ তারিখে লংকাবাংলাতে ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর হিসেবে যোগদান করেন। তার দীর্ঘ ও সম্মানিত কর্মজীবনে একজন সুদক্ষ ব্যাংকার হওয়ার সুবাদে তিনি বিভিন্ন ব্যাংকিং ও নন-ব্যাঙ্কিং ফাইন্যান্সিয়াল ইনস্টিটিউশনে বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেন। পূর্বে তিনি ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেডের বিভিন্ন পদে বিভিন্ন মেয়াদে কর্পোরেট ব্যাংকিং হেড, ক্যাশ ম্যানেজমেন্টের প্রধান এবং প্রবাসী ব্যাংকিং সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজ করেন। উপরন্তু, তিনি জিএসপি ফিন্যান্স কোম্পানি লিমিটেড এবং বাংলাদেশ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি লিমিটেডের বিভিন্ন পদে চাকরি করেন। মিঃ শাহরিয়ার উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড, এবি ব্যাংক লিমিটেড এবং গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের জন্যও কাজ করেছেন।

জনাব শাহরিয়ার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে বি.এ (হনার্স) এবং এমএ সম্পন্ন করেন। তিনি অস্ট্রেলিয়ায় মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়, মেলবোর্ন থেকে ব্যাংকিং ও ফাইন্যান্সে ব্যাচেলর অব বিজনেস সম্পন্ন করেন এবং অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নের ভিক্টোরিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফাইন্যান্সে মাস্টার অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সম্পন্ন করেন। তিনি দেশে এবং বিদেশে অনেক প্রশিক্ষণ, কর্মশালা এবং সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন।

জনাব শাহরিয়ার বিয়ে করেছেন এবং তার একজন কন্যা একজন পুত্রসন্তান আছে। তিনি পড়তে, ভ্রমণ করতে, সঙ্গীত শুনতে এবং ফুটবল ও ক্রিকেট উপভোগ করতে ভালবাসেন।

Particulars 2021 2020
Long Term AA3 AA3
Short Term ST-2 ST-2
Outlook Stable Stable
  • AA3

    Very strong capacity
    Very high quality
    Very low credit risk

  • ST-2

    High grade
    Strong capacity
    Commendable liquidity

Rated by Credit Rating Agency of Bangladesh Limited(CRAB)
Based on audited financial statements up to December 31, 2020, unaudited financial statements as of March 31, 2021 and other relevant quantitative as well as qualitative information up to the date of rating declaration (July 19, 2021)
Valid up to June 30, 2022